Top ad
আমি মোহাম্মদ জিহাদুর রহমান নয়ন, পেশা হিসেবে একজন ছাত্র । পাশাপাশি, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এ কাজ করি । প্রযুক্তি নিয়ে লিখতে ভালবাসি, তাই অবসর সময়ে প্রযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করি ।

মো: মনোয়ারুল কবির বাপ্পি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট নিয়ে কাজ করেন । লেখাপড়া করেছেন এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এ সিএসসি নিয়ে । বর্তমানে তিনি শক্তি ইঞ্জিনিয়ারিং লি. এ এসিসটেন্ট ইঞ্জিনিয়ার পদে কর্মরত আছেন।

মো: মনোয়ারুল কবির বাপ্পি এর সফলতার গল্প জানবো । আশা করি, উনার সফলতার গল্প শুনে যারা ফ্রিল্যান্সিং এ ক্যারিয়ার গড়তে চান তাঁরা অনুপ্রেরণা পাবেন ।

ইন্টারনেট এর সাথে আপনার পরিচয় কিভাবে হয়?

প্রথম কম্পিউটারের সাথে পরিচয় হয় যখন আমি ৮ম শ্রেনীতে অধ্যয়নরত। কম্পিউটার শিখার পাশাপশি অন্যজনকে কম্পিউটার শিখাতে শুরু করি । ইন্টানেট এর সাথে পরিচিত হই প্রায় 2009 সালে প্রথম ফেসবুক একাউন্ট খুলার মাধ্যমে।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর শুরুটা কিভাবে করেছিলেন?

কম্পিউটারের প্রতি আগ্রহ ছোটবেলা থেকে একটু বেশিই ছিলো । তো 2011 চাকুরীর পাশাপশি টেকটিউনস সাইট ভিজিট করতাম, সেখান থেকেই অনেক কিছু শেখা ও জানা। তবে কি করলে আমার ভাললাগবে সেই বিষয়টা ঠিক করতে পারতেছিলাম না । তাই কিছুদিন গ্রাফিক্স ডিজাইন, এসইও, HTML ইত্যাদি শিখতে থাকি। কিন্তুএকা একা কিছুই বুঝে উঠতে পারছিলামনা । তাই অনেক প্রতিষ্ঠানে ও শিখার জন্য ঘুরেছি কিন্তু ভাল কোন প্রতিষ্ঠান পাইনি, ও আপনাদের বলা হয়নি মাঝে কিছু দিন ক্লিক এর কাজ করেছি তবে শুধু ক্লিক ই করেছি টাকা আর পাইনি ।
2014 সালে একদিন টেকটিউনস ভিজিট করতেছিলাম তখন সফটটেক-আইটি ইন্সটিটিউট এর ফ্রি ওয়ার্কসপ এর খোঁজ পেলাম । চলে গেলাম পরের শুক্রবার সফটটেক আইটিতে, আর এটা ছিল আমার লাইফের অন্যতম একটা ভালো সিদ্ধান্ত । সেই দিনেই ভর্তির জন্য আবেদন করি কিন্তু ‍দুরভাগ্য যেহেতু আমি চাকুরী করি তাই সন্ধার ব্যাচ শুরু হবে একমাস পর । কি আর কারার অ্যাডভান্স ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপমেন্ট এর ব্যাচ-১০ এ ভর্তি হয়ে গেলাম। আর তখন থেকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট টিউটোরিয়াল দেখা শুরু ‍করি।

MK Bappy

প্রথম কাজ পাওয়া সম্পর্কে কিছু বলুন?

সুজন ভাই ধারনা দিয়েছিল যে, কোর্স করা অবস্থায় ই আমরা টাকা উপাজর্ন করতে পারব । কিন্তু কাজ পাওয়ার আগে পর্যন্ত আমি বুজতেছিলাম না যে আমাকে কি কাজ কারার জন্য হায়ার করা হবে । ২০ থেকে ২৫ ক্লাসের মধ্যে অনেকেই কাজ পেয়েছিল ।  কিন্তু আমি পাইতেছিলাম না ।  আমি কাজ পেলাম ২৬ নং ক্লাস থেকে ফাইভার তারপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি ।

শুরু করার সময় কোন বাঁধার সম্মুখীন হয়েছিলেন?

সময় স্বল্পতা ছিল সবচেয়ে বড় বাধা । কারন কোর্স এর সময়টা অফিস চলাকালীন সময়ের বাইরে হলেও যেহেতু আমি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করি তাই প্রতি ক্লাসের সময়মত উপস্থিত হতে পারতাম না । মাঝে মাঝে বসের সাথে মিথ্যা কথা বলতে হত।

আপনার জীবনের খারাপ সময়ের কিছু কথা বলুন?

ডিপ্লোমা শেষে খুব ভালা একটা প্রতিষ্ঠানে চাকুরী পাই । দিনকাল ভালই চলতেছিল হঠাৎ কোম্পানি বন্ধ হয়ে যায় তার পর দিশাহরা হয়ে যাই কিছুদিনের জন্য। এখন আল্লাহ্‌ তা’আলার অশেষ রহমতে সব ঠিকঠাক চলছে।

নিজেকে কেমন অবস্থানে দেখতে চান?

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই ইচ্ছা নিজের একটা প্রতিষ্ঠান করা যেখানে আমি ভালামানের প্রশিক্ষন দিতে পারব । আসলে কি বাংলাদেশে অনেক প্রতিষ্ঠান আছে ফ্রিল্যান্সিং ট্রেনিং দেয়ার জন্য কিন্তু ভালমানের প্রশিক্ষন কজন দেয়। তাই আমার ইচ্ছা গ্রামের আরা শিক্ষত বেকার যুবক আছে তাদের এই ধরনে প্রশিক্ষন প্রদান করা ।

অবসর সময় কিভাবে কাটান?

আমি ত চাকুরী করি আবার ফ্রিল্যান্সিং ও করি তাই সময় খুব কম পাওয়া যায় ।

 

ধন্যবাদ মো: মনোয়ারুল কবির বাপ্পি কে উনার সফলতার গল্প আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ব্লগ সম্পর্কে

সফটটেক ব্লগ একটি বাংলা কমিউনিটি ব্লগিং প্ল্যাটফরম যেখানে লেখক নিবন্ধন করে তাঁদের লেখা প্রকাশ করতে পারেন । এখানে শুধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক লেখা প্রকাশ করা হয় ।

যোগাযোগ

ঠিকানাঃ হাউজ#৪, লেভেল#৬, রোড#১/এ, সেক্টর#৯, আমিন টাওয়ার এপার্টমেন্ট, উত্তরা, ঢাকা - ১২৩০