Top ad
আমি মোহাম্মদ জিহাদুর রহমান নয়ন, পেশা হিসেবে একজন ছাত্র । পাশাপাশি, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এ কাজ করি । প্রযুক্তি নিয়ে লিখতে ভালবাসি, তাই অবসর সময়ে প্রযুক্তি নিয়ে লেখালেখি করি ।

আব্দুল্লাহ আল মামুন এর সফলতার গল্প

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars ( টি ভোট দেওয়া হয়েছে, গড় রেটিং: ৫.০০ যেখানে সর্বোচ্চ রেটিং: ৫)
Loading...

আব্দুল্লাহ আল মামুন বি.এস.সি কমপ্লিট করে বর্তমানে ফ্রিল্যান্স মার্কেট প্লেসে ওয়েব ডেভেলপার এবং ইন্টারনেট মার্কেটার হিসেবে কাজ করছেন। ভবিষ্যতে একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চান ।

আমরা এখন আব্দুল্লাহ আল মামুন এর সফলতার গল্প জানবো । আশা করি, উনার সফলতার গল্প শুনে যারা ফ্রিল্যান্সিং এ ক্যারিয়ার গড়তে চান তাঁরা অনুপ্রেরণা পাবেন ।

ইন্টারনেট এর সাথে আপনার পরিচয় কিভাবে হয়

ইন্টারনেটের সাথে পরিচয় কিভাবে সেইটা ঠিক মনে নাই। তবে আমি রেগুলার ইন্টারনেট ব্যবহার করি ২০১০ সাল থেকে।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর শুরুটা কিভাবে করেছিলেন:

২০১২ সালের কথা ফেইসবুকের মাধ্যমে আমার পরিচয় হয় বাংলা সবচেয়ে বড় ব্লগিং সাইট টেকটিউন্স এর সাথে। তখন দেখতাম অনেকেই সেখানে ফ্রীলাঞ্চিং নিয়ে লিখছে। কিন্তু কি শিখব আর কিভাবে শুরু করবো তা আর বুঝে উঠতে পারছিলাম না। পরে ২০১২ এর শেষের দিকে ওয়েব এর কাজ শিখায় এমন একটা ইন্সটিটিউটে ভর্তি হয়েছিলাম। কিছুদিন যাওয়ার পর হঠাৎ একদিন গিয়ে দেখি কোম্পানি নাকি সবকিছু রেখে পালিয়ে গেছে, খাইলাম ধরা। তারপর আরেকটা জায়গায় ভর্তি হয়েছিলাম। সব জায়গায় কিছু না কিছু শিখতে পেরেছিলাম কিন্তু যেখান থেকে আমি সফলতার মুখ দেখেছিলাম তা হচ্ছে সফটটেক আইটি। সফটটেক আইটি আর সুজন ভাইয়ের কিছু টিপস আর ট্রিক্‌স এর কারণে মার্কেটপ্লেসে কাজ পাই। তারপর থেকে আর ফিরে তাকাতে হয় নাই।

Abdulla Al Mamun

প্রথম কাজ পাওয়া সম্পর্কে কিছু বলুন

আমাদের ক্লাস চলাকালীন সময়ের আমি ফাইবারে প্রথম কাজ পাই। প্রথম কাজটাই ছিল ১০০$ এর। ফাইবারে তখন আমি নতুন আর আমাকে যে বায়ার অর্ডার দিয়েছে সে ও নতুন। তাই সে আমাকে ১০০$ পে করার জন্য ২০টা আলাদা অর্ডার করেছিলো, যেটা এখন আর বায়ারকে বলেও করাইতে পারিনা। প্রথমে বুঝতে পারি নাই আলাদা অর্ডার এর ভালো দিক। পরে বুঝতে পেরেছিলাম এই ২০টা অর্ডার এর কারনেই আমি লেভেল ওয়ান পার হতে পেরেছিলাম।

শুরু করার সময় কোন বাঁধার সম্মুখীন হয়েছিলেন

প্রথম কাজটা শেষ করার পর বায়ারের সাথে ভুল বুঝাবুঝির কারণে ঠিক ভাবে কাজ কমপ্লিট করতে পারি নাই। কাজটা সাবমিট করার পর বায়ার রিজেক্ট করে দেয়। তারপর অনেক চেষ্টা করে বায়ার যেভাবে বলছে সেইভাবে আবার কমপ্লিট করে সাবমিট করি। পরে বায়ার ৫ স্টার রেটিং দিয়ে অর্ডার কমপ্লিট করে দেয়। আমিও লেভেল ওয়ান পার হয়ে যাই।

আপনার জীবনের খারাপ সময়ের কিছু কথা বলুন

তেমন একটা মনে পড়ছেনা । যদি মনে পড়ে অন্য কোনোদিন জানাবো।

নিজেকে কেমন অবস্থানে দেখতে চান

একজন সফল উদ্যোক্তা হওয়ার ইচ্ছা।

অবসর সময় কিভাবে কাটান

ফ্রিল্যান্সিং করার পর আসলে সময় কখন পাই জানিনা। কারণ ফ্রিল্যান্সিং এ শুধু কাজ করলেই হয় না মাঝে মাঝে নতুন নতুন অনেক কিছুই শিখতে হয়।

নতুনদের জন্য আপনার পরামর্শ

কাজ না শিখে আগে টাকার পিছনে ছুটলে কখনোই সফল হতে পারবেন না । আগে ভালোভাবে কাজ শিখেন তারপর টাকা ইনকামের কথা আর ভাবতে হবেনা। কাজ জানলে কাজের অভাব হয় না যদি তা প্রয়োগ করতে পারেন।

ধন্যবাদ আব্দুল্লাহ আল মামুন কে উনার সফলতার গল্প আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ব্লগ সম্পর্কে

সফটটেক ব্লগ একটি বাংলা কমিউনিটি ব্লগিং প্ল্যাটফরম যেখানে লেখক নিবন্ধন করে তাঁদের লেখা প্রকাশ করতে পারেন । এখানে শুধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক লেখা প্রকাশ করা হয় ।

যোগাযোগ

ঠিকানাঃ হাউজ#৪, লেভেল#৬, রোড#১/এ, সেক্টর#৯, আমিন টাওয়ার এপার্টমেন্ট, উত্তরা, ঢাকা - ১২৩০